রাঙ্গামাটিতে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক নারী ইউপি সদস্যকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই নারীর চাচাতো ভাই ঝন্টু চাকমাকে গ্রেফতার করে শুক্রবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

ওই নারী ইউপি সদস্যকে বর্তমানে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে। গ্রেফতার ঝন্টু চাকমার বাড়ি লংগদু উপজেলার ছোট কাট্টলি এলাকায় বলে জানা গেছে।

ওই নারী ইউপি সদস্য বলেন, গত ২৪ এপ্রিল (বুধবার) আমি লংগদু থেকে রাঙ্গামাটি আসি। ওইদিন আমার চাচাতো ভাই ঝন্টু চাকমা আমাকে ফোন দিয়ে বলে গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে। ভাই হওয়ার কারণে তাকে বিশ্বাস করে রিজার্ভ বাজারের গ্রিন ক্যাসেল হোটেলে তার রুমে যাই। সে আমাকে কোকাকোলার সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ানোর পর ধর্ষণের চেষ্টা করে। আমি তার কাছে হাত-পা ধরে মাফ চাওয়ার কিছুক্ষণ পর ঘুমিয়ে পড়ি। পরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি আমি বিবস্ত্র, আমার পাশে ঝন্টু। আমি বুঝতে পারি রাতে সে আমাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। পরে আমি আমার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে শুক্রবার তার বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করি।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহিদুল আলম রনি বলেন, ওই নারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত ঝন্টু চাকমাকে গ্রেফতার করে বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জাহেদ আহম্মদের আদালতে তোলা হয়। তিনি ঝন্টু চাকমাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন এবং আগামী ১২ মে পরবর্তী হাজিরার তারিখ ঠিক করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *