স্ত্রীকে কুপিয়ে ও জিহ্বা কেটে হত্যা করেছে এক পাষণ্ড স্বামী। নিহত স্ত্রীর নাম শাহীনুর বেগম (৫৫)। ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং জিহ্বা কেটে নির্মম ভাবে এই হত্যাকাণ্ড ঘটায় পাষণ্ড স্বামী মমিনুল ইসলাম (৬০)। এ ঘটনার পর থেকে ঘাতক স্বামী মমিনুল পলাতক রয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার শেখরনগর ইউনিয়নের পশ্চিম পাউশার গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহ লেগেই ছিল। এ নিয়ে এলাকায় একাধিকবার বিচার সালিশ হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রীকে মারধর করে মুমূর্ষু অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায় স্বামী মমিনুল। পরে শুক্রবার সকালে নিহতের স্বজনরা শাহিনুর বেগমকে ঢাকা মেডিকেলে নেয়ার পথে সে মারা যায়।

নিহত শাহিনুর বেগমের ভাই সুলতান মিয়া জানান, প্রায় ৩৮ বছর আগে আমার বোনের সাথে বিয়ে হয় মমিনুলের। বিয়ের পর থেকেই বোনকে নির্যাতন করতো সে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে অমানবিক ভাবে নির্যাতন করে আমার বোনের জিহ্বা কেটে ফেলে এবং মাথায় একাধিক আঘাত করে মমিনুল। পরে শুক্রবার সকালে ঢাকা মেডিকেলে নেয়ার পথে রাস্তায় আমার বোন মারা যায়।

শেখরনগর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, একাধিক বার বিচার সালিশ করার পরও মমিনুল শুধরায়নি। তেমন কোনো কারণ ছাড়াই সব সময় স্ত্রীকে মারধর করতো। সর্বশেষ স্ত্রীকে মেরেই ফেলল। আইনের মাধ্যমে তার শাস্তি হোক এটাই আমরা চাই।

এ বিষয়ে সিরাজদিখান থানার শেখরনগর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি ছিল। রাতে স্ত্রীকে মেরে মমিনুল পালিয়ে যায়। লাশ ময়নাতন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাখা আছে এবং এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে কি কারণে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে তা জানা যায়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *